HomeOthers

  প্রতিশোধ নিয়ে একটি গল্প
2021-12-23
Apk

Additional Information
গল্পের নাম: প্রতিশোধ গল্পের লেখক:অনিক হাসান নেহাল শীতের রাত। হালকা কুয়াশায় ঢেকে আছে চারপাশ। আমি গোরস্তানের পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ দেখি একটা কবরের উপর থেকে অনবরত ধোঁয়া বের হচ্ছে। আমি কৌতূহল বশত কবরের কাছে গিয়ে দেখি কবরের সামনের অংশে মাটি নেই। লাশের সাদা কাফনে ঢাকা মাথা দেখা যাচ্ছে। ধোঁয়া সেখান থেকেই বের হচ্ছে। তখনই পেছন থেকে কারো পদ শব্দ শুনতে পেলাম …… আমি দ্রুত পেছনে তাকালাম। কিন্তু পিছনে কেউ নেই। আমি আবার সামনে তাকাতেই চমকে উঠলাম।কবরের মাটি সব ঠিক হয়ে আছে। কোনো প্রকার ধোঁয়াও বের হচ্ছে না। মধ্যরাত। চারপাশে কোন প্রকার আলো নেই, বেশ অন্ধকার। প্রচন্ড ঠান্ডা বাতাস বইছে। আমি আবার দ্রুত রাস্তায় চলে এলাম। দ্রুততার সঙ্গে হাঁটছি। হঠাৎ কেন যেন মনে হচ্ছে পিছন থেকে কেউ আমাকে ফলো করছে। স্পষ্ট জুতার খটখটে শব্দ পাচ্ছি। এটা তেলেগু শহর। কয়েকদিন হলো এই শহরে আসছি। রাতে ঘুম হয় না তাই রাস্তায় বের হয়েছিলাম হাঁটতে। জুতার শব্দ শুনে আমি পিছনে তাকালাম।না পিছনে কেউ নেই। আমি আবার সামনে তাকাতেই থপ করে একটা কঙ্কাল আমার সামনে পড়লো। আমি চিৎকার দিয়ে উঠলাম। ভয়ে গা শিউরিত হয়ে যাচ্ছে। ভয়ে কাঁপছে আমি। কঙ্কালটি হাত দিয়ে ধরতে গেলাম তখনি সেই কঙ্কালটি নিজে থেকেই আমার আগে যেতে লাগল ভয়ে প্রায় মরমর অবস্থা। আমি ভয়ে কাঁপছে অনবরত। চারদিকে কেমন যেন খটখট শব্দ হচ্ছে। আঁশটে গন্ধ চারিদিকে ভরে গেছে। আমি খুব দ্রুত হাঁটছি। কিছু দূর যেতেই দেখি কেউ একজন সাদা কাপড় পরে হেটে চলে যাচ্ছে শুন্যের উপর দিয়ে।তুবু কাঁপা কাঁপা শরীরে হাটতে থাকি। তারাতাড়ি বাড়ি পৌঁছাতে পারলেই বাঁচি। আমি যেই দৌড় দিতে যাব ওমনি হঠাৎ কিছু একটা বস্তুর সাথে হোঁচট খেয়ে পড়ে যায়। হাতে আর মুখে কেমন তরল পদার্থ লেগে চ্যাটচ্যাটে একটা ভাব অনুভব করি। হাত নাকে নিতেই বুঝতে পারি রক্ত। আমি পিছনে তাকাতেই চমকে উঠলাম। দেখি একটা লাশ।আর আমি লাশের সাথেই হোঁচট খেয়ে পড়ে গেছি। ভয়ে গা শিউরিত হয়ে যাচ্ছে। হঠাৎ খেয়াল করি আমার সামনে কেউ দাঁড়িয়ে আছে। আমি চেহারা টা দেখে থমকে গেলাম। তাড়াতাড়ি দাঁড়িয়ে পড়লাম। আমি কাঁপা কাঁপা কন্ঠে বললাম……… –তু…….তু…. তুই — হি হি হি চিনতে পেরেছিস তাহলে (নেহাল) –তুই এখানে….. আমি….. তোকে (আমি) –মেরে ফেলছিলি তাই তো (নেহাল) স্থির হয়ে দাঁড়িয়ে আছি। মনে হচ্ছে কোন স্বপ্ন দেখছি যাকে আমি নিজ হাতে মেরেছি সে আমার সামনে দাঁড়িয়ে আছে। নেহাল বললো…… -তা কি অবস্থা তোর | আমাকে মেরে ভালো আছিস তো? -প্লিজ ভাই আমাকে মাফ করে দে -হি হি হি।ক্ষমা তোর কোনো ক্ষমা নেই। তোকে আমি আজ আমি নেহালের দিকে তাকালাম। চোখে গুলো লাল ।এক অন্য রূপ ধারণ করছে ও। আমার দিকে এক পা এগিয়ে আসছে। আমি এক পা পিছনে গেলাম। হঠাৎ “না” বলে একটা চিৎকার দিলাম -কি হয়েছে ভাইয়া (রুমি) আমি চারপাশে তাকালাম। আমি নিজের রুমে আছি। এতক্ষন সপ্ন দেখছিলাম।রুমি আবার বললো……. —কি হলো ভাইয়া কি হয়েছে —-না কিছু না শুয়ে পড় [পরের দিন সকালে] ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে আছি। হাতে এক কাপ কফি। হঠাৎ চোখ পরে পায়ের নিচে একটি চিরকুট। আমি চিরকুটি হাতে নিলাম। চিরকুটে লেখা…… “ছেড়ে দিলাম তোকে। তোরা বেঈমান হইলোও আমি বেইমান না। ভালো থাকিস” >সমাপ

You may also like

  „Ok, meinereiner gebe mein Bestes“ stimmte Gerd kleinlaut diesem ungewohnlichen Dreier drauf.

  ➡️ Others


  Just how much any time you Dedicate to a wedding ring?

  ➡️ Others


  Les ecellents sites en compagnie de accomplis BDSM en fonction de Emma

  ➡️ Others


  Everything i can do are always love you and hope to you each day

  ➡️ Others


  Today I understand it’s entitled “negative cups override” NGO

  ➡️ Others


Make A Comment

Read More Load More And Share Your Knowledge
© 2021 LoadX.Xyz